মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ০৬:৪০ অপরাহ্ন

বিরল সূর্যগ্রহণের সাক্ষী হতে যাচ্ছে বিশ্ব, দিন হবে এবার রাতের মতো অন্ধকার!

  • Update Time : মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪, ৩.১৭ পিএম

সারাক্ষণ  ডেস্ক

১৯৭০ সালে সর্বশেষ এমন সূর্যগ্রহণ দেখা গিয়েছিল উত্তর আমেরিকায়। ৮ এপ্রিল আবার এ দৃশ্যের দেখা মিলবে এমন দৃশ্যের। বিরল এক সূর্যগ্রহণের সাক্ষী হতে চলেছে বিশ্ব।

আগামী ৮ এপ্রিল মেক্সিকো, যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা অতিক্রম করবে এটি। পরে উত্তর আমেরিকা ঘুরে যাবে সেটি। প্রভাবশালী মার্কিন সাময়িকী ফোর্বস এবং ভারতীয় শীর্ষস্থানীয় সংবাদমাধ্যম বিজনেস স্ট্যান্ডার্ডের প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানা গেছে।

এতে বলা হয়, ওই দিন সূর্যকে পুরোপুরি ঢেকে ফেলবে চাঁদ। ফলে দিন হবে রাতের মতো অন্ধকার। উত্তর আমেরিকা মহাদেশের দেশ যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, মেক্সিকো এবং ক্যারিবীয় অঞ্চলের বিভিন্ন স্থান থেকে এ দৃশ্য দেখা যাবে। তবে সব সূর্যগ্রহণের মতো একইসঙ্গে পৃথিবীর অন্যান্য অঞ্চল থেকে এর দর্শন মিলবে না।

সূর্যগ্রহণ খালি চোখে দেখা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। তাই এ সময় বিশেষ চশমা পরে সূর্যের দিকে তাকাতে হবে।

৮ এপ্রিল পৃথিবীর ওই তিন অঞ্চলে সূর্যকে পুরোপুরি ঢেকে ফেলবে চাঁদ। ফলে দিন হবে রাতের মতো অন্ধকার। পরে উত্তর আমেরিকা ঘুরে যাবে এ পূর্ণ সূর্যগ্রহণ।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এ ধরনের সূর্যগ্রহণ খবুই বিরল। পূর্ণ সূর্যগ্রহণের দিন সূর্যোদয় বা সূর্যাস্তের মতো আকাশ অন্ধকার হয়ে যাবে। মূলত, সূর্য ও পৃথিবীর মাঝখানে চাঁদ এলে পূর্ণ সূর্যগ্রহণ হয়। নির্দিষ্ট সময় সূর্যকে সম্পূর্ণভাবে অবরুদ্ধ করে ফেলে এটি। এতে সম্পূর্ণ সূর্যগ্রহণ হয়। ফলে আকাশ হালকা অন্ধকার হয়ে যায়। সে সময়কে ভোর বা সন্ধ্যার মতো মনে হয়।

প্রতি ১৮ মাস পর পর পৃথিবী ও সূর্যের মাঝখানে আসে চাঁদ। সে সময় সূর্যের রশ্মিকে পৃথিবীতে পৌঁছাতে বাধা দেয় এ উপগ্রহ। এর পরিপ্রেক্ষিতে সম্পূর্ণ সূর্যগ্রহণ হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার তথ্যমতে, ৩৭৫ দিন পরপর পূর্ণ সূর্যগ্রহণ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তবে সময়টা আরও বেশি হতে পারে। ১৯৭০ সালে সর্বশেষ এমন সূর্যগ্রহণ দেখা গিয়েছিল উত্তর আমেরিকায়। ৮ এপ্রিল আবার এ দৃশ্যের দেখা মিলবে। এরপর ২০৭৮ সালে এ ঘটনার সাক্ষী হবেন আমেরিকানরা।

সূত্র : নাসা

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

kjhdf73kjhykjhuhf
© All rights reserved © 2024