বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০৪:৪৯ অপরাহ্ন

৫৩০ ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তা পেয়েছেন আর্থিক সক্ষমতার প্রশিক্ষণ

  • Update Time : মঙ্গলবার, ৪ জুন, ২০২৪, ৬.৪৭ পিএম

সারাক্ষণ ডেস্ক

হংকং সাংহাই ব্যাংকিং করপোরেশন লিমিটেড (এইচএসবিসি) ও ব্র্যাক এর যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত “বিল্ড ব্যাক বেটার” শীর্ষক প্রদর্শনীতে স্থানীয় ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের তৈরি নানা ধরনের পণ্যের মেলা বসেছিল মঙ্গলবার, ৪ঠা জুন, মহাখালীর ব্র্যাক সেন্টারে। এই মেলায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ২০ জন উদ্যোক্তা তাদের পণ্য নিয়ে এসেছিলেন।

দিনব্যাপী এই আয়োজনে স্থানীয়ভাবে তৈরি হাতে সেলাই করা পোশাক, হস্তশিল্প, মাটি এবং পাটজাত পণ্য, খাদ্য সামগ্রী এবং বাঁশ-বেত থেকে তৈরি অসাধারণ সব পণ্য দর্শণার্থীদের সামনে তুলে ধরা হয়। করোনা মহামারির বিপর্যয় থেকে এই ক্ষুদ্র উদ্যোক্তদের ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয় আর শক্তির নিদর্শন হয়ে উঠে এই প্রদর্শনীটি।করোনা মহামারি (কোভিড-১৯)-র সময়ে ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প মারাত্মক ক্ষতির সম্মুখীন হয়; বিশেষ করে তথ্য, আইটি দক্ষতা এবং আর্থিক ব্যবস্থাপনায় দক্ষতার অভাবে নারী উদ্যোক্তারা দারুণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিলেন।

সেই কুটিরশিল্প, ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোগ (সিএসএমই) এবং উদ্যোক্তাদের সক্ষমতা বাড়াতে এইচএসবিসি ও ব্র্যাক ২০২১ সালে তাদের জন্য ঋণের ব্যবস্থা করে এবং ব্যবসা সম্প্রসারণে সহায়তার জন্য “বিল্ড ব্যাক বেটার” উদ্যোগটি হাতে নেয়। বুধবারের এই প্রদর্শনীর মূল লক্ষ্য ছিল স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত নানা পণ্যের ব্যতিক্রমী সৃজনশীলতা এবং গুণগতমান তুলে ধরা।

অনুষ্ঠানে ব্র্যাক দক্ষতা উন্নয়ন কর্মসূচীর (এসডিপি) সহযোগী পরিচালক তাসমিয়া তাবাসসুম রহমান বলেন, “এই প্রদর্শনীর মূল লক্ষ্য হচ্ছে অংশগ্রহণকারীদের সক্ষমতা ও সৃজনশীলতা তুলে ধরা। আমরা আনন্দের সঙ্গে বলতে চাই, যেসকল উদ্যোক্তা আমাদের এই প্রকল্পে অংশ নিয়েছেন তাদের প্রায় সবাই অর্থ ব্যবস্থাপনা এবং ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ড পরিচালনায় আরো বেশি দক্ষ ও আত্মবিশ্বাসী হয়েছেন।”

এইচএসবিসির হেড অফ কর্পোরেট সাসটেইনেবিলিটি, সৈয়দা আফজালুন নেসা বলেন, “আমরা এই উদ্যোগের মাধ্যমে ৫০০ জনেরও বেশি উদ্যোক্তাকে ব্যবসার বিকাশে সহায়তা করেছি। এই প্রদর্শনীর মাধ্যমে আমরা আমাদের অংশগ্রহণকারীদের দৃঢ় সংকল্প আর হার না মানার শক্তিটা তুলে ধরতে চাই।”

ইন্টারন্যাশনাল ফাইন্যান্স করপোরেশনের (আইএফসি) এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, করোনা মহামারিতে ৮৩ শতাংশ ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়ে। অনেক ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাই আর্থিক হিসাবগুলো সঠিকভাবে সংরক্ষণ করেন না বলে তারা ঋণপ্রাপ্তির সুযোগ থেকে বঞ্চিত হন।

‘বিল্ড ব্যাক বেটার: বিল্ডিং ব্যাক বেটার বিজনেস থ্রু ফিনান্সিয়াল লিটারেসি’ শীর্ষক এই উদ্যোগটি নারী উদ্যোক্তাদের আর্থিক সক্ষমতা বাড়ানো, মহামারি পরবর্তী আর্থিক ক্ষতি কাটিয়ে ঘুরে দাঁড়াতে সহায়তার পাশাপাশি অন্য চ্যালেঞ্জগুলো কমাতে কাজ করেছে। প্রকল্পটি ইতোমধ্যে ক্ষুদ্র, মাঝারি ও কুটির শিল্পের ৫৩০ জন উদ্যোক্তাকে আর্থিক সক্ষমতা বিষয়ে প্রশিক্ষণ দিয়েছে। ২০৩০ সালের মধ্যে এই ক্ষুদ্র উদ্যোক্তারা জিডিপিতে ৩০ শতাংশ অবদান রাখবেন এবং ৮০ শতাংশ মানুষের কর্মসংস্থানে সহায়তার মাধ্যমে দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবেন।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

kjhdf73kjhykjhuhf
© All rights reserved © 2024