শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ০৪:৩৩ অপরাহ্ন

প্রাক্তন ফ্লাইট অ্যাটেনডেন্ট এখন জাপান এয়ারলাইন্সের প্রথম মহিলা বস

  • Update Time : শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল, ২০২৪, ৫.৩২ পিএম

সারাক্ষণ ডেস্ক

জানুয়ারিতে যখন মিতসুকো টটোরিকে জাপান এয়ারলাইন্সের (জেএএল) নতুন বস হিসাবে নাম দেওয়া হয়েছিল, তখন এটি দেশের কর্পোরেট সেক্টর জুড়ে আলোড়ন হয়েছিল। একটি যেন ছিল শকওয়েভ ! মিস টটোরি শুধু তাঁর ক্যারিয়ারের প্রথম মহিলা বসই নন , তিনি কেবিন ক্রু সদস্য হিসাবে কর্মজীবন শুরু করেছিলেন।

আগে এই পদে যারা ছিলেন তাদের শেষ ১০ জনের মধ্যে সাতজন দেশের শীর্ষ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষিত। সেদিক বিবেচনা করলে মিস টটোরি অনেক কম যোগ্যতাসম্পন্ন। কারণ তিনি শুধু জুনিয়র কলেজের স্নাতক। কেবিন ক্রু থেকে চিফ কাস্টমার অফিসার পদে উন্নীত হওয়া টোটোরি এপ্রিল মাসে জেএএল-এর সভাপতির দায়িত্ব গ্রহণ করেন এবং এখন জাপান এয়ারলাইন্সের মতো বড় বৈশ্বিক বিমান সংস্থার নেতৃত্বদানকারীদের অন্যতম একজন।

টটোরি বলেন, “আমি নিজেকে প্রথম মহিলা বা প্রথম প্রাক্তন ফ্লাইট অ্যাটেনডেন্ট হিসাবে মনে করি না। আমি একজন ব্যক্তি হিসাবে কাজ করতে চাই। কিন্তু আমি বুঝতে পারি যে জনসাধারণ বা আমাদের কর্মচারীরা হয়তো আমাকে এভাবে দেখে না।  ”

 

অবতরণের সময় উপকূলরক্ষী বিমানের সঙ্গে সংঘর্ষ হওয়া একটি বিমান থেকে যাত্রীদের সফলভাবে সরিয়ে নেওয়ার জন্য জেএএল-এর ফ্লাইট অ্যাটেন্ডেন্টদের রক্ষা পাওয়ার মাত্র দুই সপ্তাহ পরে তাঁর নিয়োগ হয়। জাপান এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট ৫১৬ টোকিওর হানেদা বিমানবন্দরে রানওয়েতে সংঘর্ষের পরে আগুনে পুড়ে যায়। উপকূলরক্ষী বিমানের ছয়জন কর্মীর মধ্যে পাঁচজন মারা যান এবং ক্যাপ্টেন আহত হন। তবে, সংঘর্ষের কয়েক মিনিটের মধ্যেই এয়ারবাস এ ৩৫০-৯০০-এ থাকা ৩৭৯ জন যাত্রী নিরাপদে অবতরণ করেন। তখনই ক্যারিয়ারের ফ্লাইট অ্যাটেন্ডেন্টদের কঠোর প্রশিক্ষণ হঠাৎ করে আলোচনায় আসে।

নিজে একজন প্রাক্তন ফ্লাইট অ্যাটেন্ডেন্ট হিসাবে, মিসেস টোটোরি বিমান চলাচলের সুরক্ষার গুরুত্ব সরাসরি শিখেছিলেন।
যদিও ১৯৮৫ সালে তিনি ফ্লাইট অ্যাটেন্ডেন্ট হওয়ার চার মাস পর, জাপান এয়ারলাইনস বিমান চলাচলের ইতিহাসের সবচেয়ে মারাত্মক একক বিমান দুর্ঘটনায় পড়ে। সেই দুর্ঘটনায় ওসুতাকা পর্বতে ৫২০ জন মারা যায়।

 

মিস টোটোরি বলেন, “জেএএল-এর প্রতিটি কর্মীকে ওসুতাকা পর্বতে আরোহণ করার এবং যারা দুর্ঘটনার কথা মনে রেখেছেন তাদের সঙ্গে কথা বলার সুযোগ দেওয়া হয়েছে।”আমরা আমাদের নিরাপত্তা প্রচার কেন্দ্রে বিমানের ধ্বংসাবশেষও প্রদর্শন করি তাই শুধু একটি বইতে এটি সম্পর্কে পড়ার পরিবর্তে, আমরা দুর্ঘটনা সম্পর্কে জানতে নিজের চোখ দিয়ে দেখি এবং নিজে অনুভব করি।”

শীর্ষ পদে তাঁর নিয়োগ অবাক করার মতো হলেও, ২০১০ সালে দেউলিয়া হয়ে যাওয়ার পর থেকে জেএএল দ্রুত পরিবর্তিত হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

kjhdf73kjhykjhuhf
© All rights reserved © 2024