শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ০৪:১৬ পূর্বাহ্ন

 ‘এল নিনো’ জুনে শেষ হতে পারে আসছে ‘লা নিনা’

  • Update Time : শনিবার, ১১ মে, ২০২৪, ৩.৫৬ পিএম
২৬ এপ্রিল, ২০২৪-এ ফিলিপাইনের ম্যানিলায় তীব্র তাপপ্রবাহের সময় কুয়াপো চার্চের বাইরে ছাতার নীচে মানুষ। ছবি: রয়টার্স

সারাক্ষণ ডেস্ক

ইতোমধ্যে ‘এল নিনো’ আবহাওয়ার প্রভাবে ৪ বিলিয়ন পেসো মূল্যের ফসলের ক্ষতি হয়েছে যা সর্বোচ্চ তাপমাত্রার রেকর্ডসহ জুনের মধ্যে শেষ হতে পারে।

ফিলিপাইন অ্যাটমোস্ফিয়ারিক, জিওফিজিক্যাল অ্যান্ড অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল সার্ভিস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (পাগাসা) প্রধান নাথানিয়েল সার্ভান্দো শুক্রবার ভাইবারের মাধ্যমে ম্যানিলা টাইমসকে বলেছেন যে ‘এল নিনো’ দুর্বল হতে শুরু করেছে কিন্তু আগামীদিনগুলিতে দেশে এর প্রভাব বিরাজমান থাকবে।

এল নিনোর প্রভাবে তীব্র খড়া/ ফিলিপাইন

সার্ভান্দো আরও বলেন, পাগাসা ১ জুন থেকে ১৫ জুনের মধ্যে যে কোনো সময় বর্ষা মৌসুম শুরু হওয়ার ঘোষণা দিতে পারে। পাগাসা বলেছে যে একটি ‘লা নিনা’র সময়টি বর্ষা মৌসুমের সাথে একসাথে হতে পারে এবং তখন স্বাভাবিক  মাত্রার চেয়ে বেশি বৃষ্টিপাত হতে পারে।

সার্ভান্দো বলেন, ফিলিপাইন এরিয়া অফ রেসপন্সিবিলিটি (PAR)তে বছরের শেষ পর্যন্ত ১৩ থেকে ১৬টি ঝড় হতে পারে। ফিলিপাইনে সাধারনত বছরে প্রায় ২০ টি ঝড় হয়।

প্রথম আবহাওয়ার বিপর্যয় সম্ভবত আগামী সপ্তাহের শুরুতে ফিলিপাইন এরিয়া অফ রেসপন্সিবিলিটি (PAR)তে হানা দিতে পারে এবং সেটি সম্ভবত মিন্দানাও অঞ্চলে প্রভাব পড়বে। সার্ভান্দো বলেছেন এই ঝড়টির  নাম হবে “আঘোন।” একেবারে উত্তর লুজন অঞ্চলে, বিশেষ করে বাটানেস এবং কাগায়ানে সপ্তাহের শেষের দিকে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে৷

ম্যানিলা, এপ্রিল ১ ফিলিপাইনে এল নিনোর ভয়বহতা মোকাবেলায় সেদেশের টাস্ক ফোর্স ক্রমবর্ধমান তাপমাত্রার সম্ভাব্য প্রভাবের মধ্যে মুখোমুখি ক্লাস স্থগিত করার বিষয়টি বিবেচনা করার আহ্বান জানিয়েছিল।

পাগাসার আরেক কর্মকর্তা, যিনি জলবায়ু পর্যবেক্ষণ এবং আগাম বার্তা প্রধান অ্যানালিজা সোলিস ম্যানিলা টাইমসের ‘রিল টাইমস স্ট্রিমিং’ প্রোগ্রামে বলেছেন যে গত ২৭ এপ্রিল এবং ৬ মে টারলাকের তাপমাত্রা ৪০.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছেছিল, যা এখন পর্যন্ত রেকর্ড করা সর্বোচ্চ তাপমাত্রা।

গত রবিবার, জাম্বালেসের ইবাতে দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা সূচক ৫৩* ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছিল। তাপমাত্রা সূচক আপেক্ষিক আর্দ্রতা এবং মানবদেহে এর প্রভাব পরিমাপ করে। সোলিস বলেন, তাপ সূচক হল অস্বস্তি স্তরের একটি পরিমাপক যা সতর্কতা থেকে চরম বিপদ পর্যন্ত শ্রেণীবিভাগ করে।

সোলিস বলেন, মার্চ থেকে মে পর্যন্ত সময়টা ছিল দেশের সবচেয়ে উষ্ণতম শুষ্ক প্রভাব গুলির মধ্যে একটি।

সোলিস বলেছিলেন,” প্রকৃতপক্ষে কিছু এলাকা ইতোমধ্যে তাদের চরম গরমের দিনের তাপমাত্রাকে অতিক্রম করেছে । সেখানে ছিল নয়টি স্টেশন যেগুলি ইতিমধ্যেই এপ্রিল মাসে তাদের চরম দিনের তাপমাত্রাকে অতিক্রম করেছে। সেই নয়টি স্টেশনের মধ্যে আবার  ছয়টি তাদের এযাবতকালের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা অতিক্রম করেছে ।”

পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রগুলোর মধ্যে ছিল ক্লার্ক, পাম্পাঙ্গা; সান জোসে, অক্সিডেন্টাল মিন্ডোরো; ক্যাসিগুরান, অরোরা; সাংলে পয়েন্ট, ক্যাভিট; মাসিন, লেইতে; মালয়বালে, বুকিডন; পাসে শহরের নিনয় অ্যাকুইনো আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর; সায়েন্স গার্ডেন, কুইজন সিটি; এবং ক্যাটবালোগান,সামার।

সোলিস বলেন, “আবার এমনও হয়েছে যে, ফিলিপাইনে শক্তিশালী এল নিনোর প্রভাব উষ্ণ এবং শুষ্ক মৌসুমের মাসগুলিতে ঘটেছে।” গ্লোবাল ওয়ার্মিংও রেকর্ড তাপমাত্রায় অবদান রেখেছে, তিনি বলেন।

পাগাসা গত ডিসেম্বরের প্রথম দিকে আগাম বলেছিলেন যে বিশেষ করে শক্তিশালী এল নিনোর প্রভাবে এই বছরের শুষ্ক মৌসুম সবচেয়ে উষ্ণ হতে পারে। সোলিস বলেছিলেন যে এপ্রিলে তাপমাত্রা শীর্ষে থাকলেও, মে মাসের প্রথমার্ধে দেশের কিছু অঞ্চল এখনও স্বাভাবিকের চেয়ে উষ্ণ দিন অনুভব করতে পারে।

তিনি বলেছিলে, “এখনও একটি সম্ভাবনা রয়েছে; যদিও স্থানীয় বজ্রপাত এবং ব্যাপক মেঘলা এলাকা রয়েছে, কিন্তু তাপমাত্রার সূচকগুলি ইতিমধ্যেই কমছে এবং সেইসাথে আমাদের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা সূচকও। তাই আমি মনে করি এটি আবহাওয়ার ক্ষেত্রে একটি ভাল খবর।”

তিনি বলেন, সংস্থাটি আগামী পাঁচ থেকে ছয় মাসের মধ্যে একটি লা নিনা পর্বের পূর্বাভাস দিয়েছে।

“কখনো যদি আমরা একটি লা নিনা সতর্কতা জারি করি, তখনই আমরা উচ্চতর আত্মবিশ্বাস রাখছি যে এটি একটি পূর্ণ-বিকশিত লা নিনাতে বিকশিত হবে নাকি এটি বছরের দ্বিতীয়ার্ধে শুরু হতে পারে,” সোলিস বলেছিলেন।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

kjhdf73kjhykjhuhf
© All rights reserved © 2024