শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ০১:২৬ অপরাহ্ন

গাজীপুরে আগুনে পুড়ে গেছে শতাধিক টিনের ঘর ও মুদিদোকান

  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১৬ মে, ২০২৪, ১০.১১ এএম

সারাক্ষণ ডেস্ক

 

প্রথমআলোর একটি শিরোনাম “গাজীপুরে আগুনে পুড়ে গেছে শতাধিক টিনের ঘর ও মুদিদোকান”

গাজীপুর নগরীরের ভোগড়া এলাকায় আগুনে শতাধিক মুদিদোকান ও টিনশেড ঘর পুড়ে গেছে। গতকাল বুধবার দিবাগত রাত পৌনে তিনটার দিকে সেখানে আগুনের সূত্রপাত হয়। পরে ফায়ার সার্ভিসের পাঁচটি ইউনিট এক ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণ আনে। আগুন নেভাতে গিয়ে স্থানীয় এক ব্যক্তি আহত হয়েছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ভোগড়া এলাকায় রাত পৌনে তিনটার দিকে হঠাৎ টিনশেডের একটি ঘর থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। ওই বাসার সবাই ঘুমিয়ে ছিলেন। পরে কয়েকজনের চিৎকার শুনে সবাই ঘর থেকে বের হয়ে আসেন। আগুন দ্রুত বাসাবাড়ির পাশাপাশি দোকানে ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনাস্থলে আসেন। ফায়ার সার্ভিসের পাঁচটি ইউনিট চারটার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে আগুন সম্পূর্ণ নিভে যায় আজ বৃহস্পতিবার সকাল ছয়টার দিকে। এর মধ্যে দোকানের মালপত্র ও টিনশেড ঘরের আসবাব পুড়ে যায়। আগুন নেভাতে গিয়ে রাজু মিয়া নামের এক ব্যক্তি আহত হয়েছেন।

গাজীপুর চৌরাস্তা মডার্ন ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন কর্মকর্তা রুহুল আমিন মোল্লা বলেন, ‘ধারণা করছি বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুন লেগেছে। আগুনে বাসাবাড়ির আসবাব ও জিনিসপত্র এবং মুদি মালপত্র পুড়ে গেছে। তদন্ত করে ক্ষতির পরিমাণ জানা যাবে।

 

 

ইত্তেফাক এর একটি শিরোনাম “সৌদি আরবে পৌঁছেছেন ২১ হাজারের বেশি হজযাত্রী”

হজ পালনের জন্য বাংলাদেশ থেকে এ পর্যন্ত ২১ হাজারের বেশি হজযাত্রী সৌদি আরব পৌঁছেছেন। বৃহস্পতিবার (১৬ মে) হজ ব্যবস্থাপনা পোর্টালের বুলেটিনে এ তথ্য জানানো হয়।

সৌদিতে যাওয়া হজযাত্রীদের মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৩ হাজার ৭৪৭ জন জন এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনার গেছেন ১৭ হাজার ৩১৬ জন।

বাংলাদেশ থেকে ৫৩টি ফ্লাইটে এসব হজযাত্রী সৌদি পৌঁছেছেন। এর মধ্যে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের ১৮টি, সৌদি এয়ারলাইনসের ১৬টি এবং ফ্লাইনাস এয়ারলাইনস ১৯টি ফ্লাইট পরিচালনা করে।

এর আগে, গত ৯ মে বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের প্রথম ডেডিকেটেড ফ্লাইট ৪১৫ জন হজযাত্রী নিয়ে সৌদির উদ্দেশ্যে যাত্রা করে। এর মাধ্যমেই চলতি বছরের হজের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়। শেষ হবে ১০ জুন।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ১৫ জুন পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হবে। হজযাত্রীদের প্রথম ফিরতি ফ্লাইট শুরু হবে ২০ জুন এবং শেষ হবে ২২ জুলাই।

 

 

মানবজমিন এর একটি শিরোনাম “বাংলাদেশের অভিযাত্রায় যুক্তরাষ্ট্রের অনেক ভূমিকা রয়েছে”

মার্কিন সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডনাল্ড লু’র সঙ্গে বৈঠক শেষে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন- বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যকার বিদ্যমান সম্পর্ক আরও গভীর ও বিস্তৃত করার লক্ষ্যে আলোচনা হয়েছে। দুই দেশের সম্পর্ককে বহুমাত্রিক উল্লেখ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের অভিযাত্রায় যুক্তরাষ্ট্রের অনেক ভূমিকা রয়েছে। গতকাল বিকালে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন ডনাল্ড লু। পরে সাক্ষাতের বিষয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন হাছান মাহমুদ।

নির্বাচনের পরে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে লেখা চিঠিতে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ককে ভিন্ন মাত্রায় নিয়ে যাওয়ার কথা বলা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, একক দেশ হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় রপ্তানি বাজার এবং সবচেয়ে বড় বিনিয়োগকারী। মন্ত্রী বলেন, আমি অনুরোধ করেছি যে, আমরা যে ৪০টি আইটি ভিলেজ করার পরিকল্পনা করেছি সেখানে কিছু মার্কিন বিনিয়োগ আছে এবং আরও যাতে বিনিয়োগ বাড়ানো হয়। এ ছাড়া বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে যেন আরও মার্কিন বিনিয়োগ আসে সে বিষয়ে কাজ করার অভিপ্রায় ব্যক্ত করেছি। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমাদের বিজনেস বাস্কেটের ব্যাপ্তি বাড়ানোর জন্য যে জিএসপি সুবিধা আমরা পেতাম কিন্তু এখন পাই না, সেটি তারা ফিরিয়ে দিতে রাজি। আমি বলেছি, আপনারা প্রোগ্রামটা যখন ফের শুরু করবেন, তখন বাংলাদেশকে বিবেচনা করুন। মন্ত্রী বলেন, তবে এজন্য সবার আগে আমাদের শ্রমনীতি পুনঃপর্যালোচনা করতে হবে এবং এটি আমরা করছি। এটি নিয়ে আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের সঙ্গে সোমবার দীর্ঘ আলোচনা হয়েছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমাদের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বাড়ানো এবং আর্থিক খাতকে শক্তিশালী করার জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তাদের ডেভেলপমেন্ট ফাইনান্স করপোরেশন থেকে বাংলাদেশকে অর্থায়ন করতে চায়। তিনি বলেন, আমাদের দেশে ২৫ লাখ লোক কর দেয় কিন্তু এখানে কয়েক কোটি লোকের কর দেয়ার সক্ষমতা রয়েছে, কিন্তু কর দেয় না।

কর ব্যবস্থাকে আধুনিক করার জন্য যুক্তরাষ্ট্র সহায়তা করতে চায় এবং একইসঙ্গে কর ফাঁকি বন্ধেও তারা সহায়তা করতে চায়। ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আমি তাকে অনুরোধ জানিয়েছি ২০২৬ সালে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হবে বাংলাদেশ এবং আমরা এখন যে সুবিধা পাই সেটি আর থাকবে না। ট্রানজিশন পিরিয়ডে যেন বাংলাদেশের যাত্রা মসৃণ হয় সেটির জন্য আমি যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তা চেয়েছি।

বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনি রাশেদ চৌধুরীকে ফেরত পাঠানোর বিষয়ে ডনাল্ড লু জানিয়েছেন যে, এটি তাদের বিচার বিভাগের অধীনে এবং সেখানে হোয়াইট হাউস বা স্টেট ডিপার্টমেন্টের এখতিয়ার নেই। তবে তারা তাকে ফিরিয়ে আনার জন্য সহায়তা করবে। তারা বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক ঘনিষ্ঠ করতে চায়। আমরাও চাই।

নির্বাচন বা মানবাধিকার নিয়ে কোনো আলোচনা হয়নি জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা সম্পর্ককে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে ইতিবাচক বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করেছি। উভয়পক্ষ আলোচনা করেছি যে অতীতে কি ঘটেছে, সেটি আমরা দেখতে চাই না। আমরা ভবিষ্যতের দিকে তাকাতে চাই।

 

 

The Daily Star বাংলার একটি শিরোনাম “গুলিবিদ্ধ হয়ে প্রাণসংকটে স্লোভাকিয়ার প্রধানমন্ত্রী”

স্লোভাকিয়ার প্রধানমন্ত্রী রবার্ট ফিকো বন্দুকধারীর গুলিতে গুরুতর আহত হয়েছেন। এখন আশঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছেন তিনি। বুধবার বিকেলে একটি রাজনৈতিক অনুষ্ঠানে যোগদানের পর গুলিবিদ্ধ হন তিনি।

স্লোভাকিয়ার টিএ৩ টেলিভিশনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাজধানী থেকে প্রায় ১৫০ কিলোমিটার উত্তর-পূর্বে হ্যান্ডলোভা শহরের হাউস অব কালচারের বাইরে তাকে লক্ষ্য করে চারটি গুলি চালায় বন্দুকধারী। এসময় ৫৯ বছর বয়সী ফিকো পেটে গুলিবিদ্ধ হন। এই ঘটনায় সন্দেহভাজন একজনকে আটক করা হয়েছে।

ফিকোর ফেসবুক অ্যাকাউন্টে পোস্ট করা এক বার্তায় বলা হয়েছে, তাকে বেশ কয়েকবার গুলি করা হয়েছে এবং বর্তমানে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

ইউরোপীয় পার্লামেন্টের গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচনের তিন সপ্তাহ আগে স্লোভাকিয়ায় এই গোলাগুলির ঘটনা ঘটল।

স্লোভাকিয়ার টিএএসআর সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে, পার্লামেন্টের ডেপুটি স্পিকার লুবোস ব্লাহা স্লোভাকিয়ার পার্লামেন্টের অধিবেশনে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন এবং পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত অধিবেশন স্থগিত করেছেন।

স্লোভাকিয়ার প্রধান বিরোধী দল, প্রগ্রেসিভ স্লোভাকিয়া এবং ফ্রিডম অ্যান্ড সলিডারিটি, রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নিয়ে বিতর্কিত সরকারি পরিকল্পনার বিরুদ্ধে একটি ঘোষিত প্রতিবাদ বাতিল করেছে।

প্রগ্রেসিভ স্লোভাকিয়ার নেতা মাইকেল সিমেকা বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী রবার্ট ফিকো গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই আমরা। একই সঙ্গে উত্তেজনা আরও বাড়াতে ভূমিকা রাখতে পারে এমন কোনো ধরনের পদক্ষেপ থেকে বিরত থাকার জন্য আমরা সব রাজনীতিবিদকে আহ্বান জানাচ্ছি।’

দেশটির প্রেসিডেন্ট জুজানা কাপুতোভা প্রধানমন্ত্রীর ওপর ‘নৃশংস ও নির্মম’ হামলার নিন্দা জানিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী ফিকো রাশিয়াপন্থী হিসেবে পরিচিত। তার বামপন্থী স্মার বা ডিরেকশন দল স্লোভাকিয়ার ৩০ সেপ্টেম্বরের পার্লামেন্ট নির্বাচনে জয়ী হয়েছে।

 

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

kjhdf73kjhykjhuhf
© All rights reserved © 2024