বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০৪:২৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :

নরেন্দ্র মোদিকে বাংলাদেশে আমন্ত্রণ শেখ হাসিনার

  • Update Time : মঙ্গলবার, ১১ জুন, ২০২৪, ৯.৫৩ এএম

সারাক্ষণ ডেস্ক

প্রথম আলোর একটি শিরোনাম “নরেন্দ্র মোদিকে বাংলাদেশে আমন্ত্রণ শেখ হাসিনার”

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গী পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাছান মাহমুদ সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

আজ সোমবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।
ভারতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মুস্তাফিজুর রহমান এবং প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব নাঈমুল ইসলাম খান এ সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন।

ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লির আইটিসি মৌর্য হোটেলে গতকাল রোববার রাতে হাছান মাহমুদ সাংবাদিকদের বলেন, পরপর তৃতীয়বারের মতো ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নরেন্দ্র মোদির শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর সঙ্গে একান্ত সাক্ষাৎ করেন।

গতকাল সন্ধ্যায় রাষ্ট্রপতি ভবনে সারা বিশ্ব থেকে আগত প্রায় আট হাজার অতিথির সঙ্গে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী। তাঁর কন্যা ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার আঞ্চলিক পরিচালক সায়মা ওয়াজেদ, পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাছান মাহমুদ এবং প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান ফজলুর রহমান এ সময় তাঁর সঙ্গে ছিলেন।

আজ সোমবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর দিল্লি থেকে ঢাকা রওনা হওয়ার কথা রয়েছে।

 

 

যুগান্তরের একটি শিরোনাম “ইরানের পর এবার মালাবির ভাইস–প্রেসিডেন্টের বহনকারী বিমান নিখোঁজ”

আফ্রিকার দেশ মালাবির ভাইস–প্রেসিডেন্ট সাওলোস চিলিমা ও অন্য ৯ জনকে বহনকারী একটি বিমান নিখোঁজ হয়েছে। বিমানটিতে ভাইস–প্রেসিডেন্টের স্ত্রীসহ গুরুত্বপূর্ণ নেতারা রয়েছেন।

সোমবার স্থানীয় সময় সকাল ১০টার পরে বিমানটি মালাবির উত্তরে মজুজু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করার কথা ছিল। এ বিষয়ে মালাবির প্রেসিডেন্টের কার্যালয় থেকে সোমবার একটি বিবৃতি দেওয়া হয়েছে। খবর বিবিসির।

বিবৃতিতে বলা হয়, ‘চিলিমা ও অন্যদের নিয়ে প্রতিরক্ষা বাহিনীর বিমানটটি সোমবার স্থানীয় সময় সকাল ৯টা ১৭ মিনিটে রাজধানী লিলংওয়ে থেকে উড্ডয়ন করে। কিন্তু নির্দিষ্ট সময়ে বিমানটি গন্তব্যে অবতরণ করেনি।’

এর আগে গত ১৯ মে ইরানের প্রেসিডেন্ট সৈয়দ ইব্রাহিম রাইসি ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আবদুল্লাহিয়ানসহ কয়েকজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাকে বহনকারী একটি বিমান নিখোঁজ হয়। পরে দেশটির পাহাড়ি এলাকায় সেটিকে বিধ্বস্ত অবস্থায় পাওয়া যায় এবং আরোহীদের সবাই নিহত হন। ওই ঘটনার ২২ দিন পর মালাবির ভাইস–প্রেসিডেন্ট সাওলোস চিলিমা ও তার সঙ্গীদের বহনকারী বিমানটি নিখোঁজের ঘটনা ঘটল।

নিখোঁজ ফ্লাইটটির অন্যান্য যাত্রীদের মধ্যে সাওলোস চিলিমার স্ত্রী মেরি ও ভাইস-প্রেসিডেন্টের ইউনাইটেড ট্রান্সফরমেশন মুভমেন্ট (ইউএমটি) পার্টির বেশ কয়েকজন কর্মকর্তা রয়েছে। বিমনাটির কী হয়েছে, সে বিষয়ে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

মালাবির বিমান কর্মকর্তারা নিখোঁজ বিমনটির সঙ্গে যোগাযোগ করতে না পারায় প্রেসিডেন্ট লাজারাস চাকভেরা অনুসন্ধান ও উদ্ধার অভিযানের নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি প্রতিরক্ষা বাহিনীর কমান্ডার জেনারেল ভ্যালেন্টিনো ফিরির কাছ থেকে ঘটনার জানার পরপরই বাহামাসে নির্ধারিত ফ্লাইট বাতিল করেছেন।

মালাবির তথ্যমন্ত্রী মোসেস কুনকুয়ু বলেছেন, উড়োজাহাজটি খুঁজে বের করার প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

ভাইস–প্রেসিডেন্ট সাওলোস চিলিমা তিন দিন আগে মারা যাওয়া প্রাক্তন মন্ত্রী রাল্ফ কাসাম্বারার সমাধিতে সরকারের প্রতিনিধিত্ব করতে যাচ্ছিলেন। তার রাজনৈতিক কর্মজীবনের আগে তিনি ইউনিলিভার ও কোকা কোলার মতো বহুজাতিক কোম্পানিতে নেতৃত্ব দিয়েছেন।

৫১ বছর বয়সী সাওলোস চিলিমা ২০১৪ সাল থেকে দক্ষিণ আফ্রিকার দেশটির ভাইস-প্রেসিডেন্ট। তিনি বিবাহিত ও দুই সন্তানের জনক।

 

 

বণিক বার্তার একটি শিরোনাম “খেলাপি ঋণ এখন বিজনেস মডেল হয়ে গেছে: ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ”

বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ বলেছেন, ‘খেলাপি ঋণ এখন দেশে একটা বিজনেস মডেল হয়ে গেছে। আপনি ব্যাংক থেকে ঋণ নেবেন, আর ফেরত দেবেন না, এই মডেল চলছে।’

সোমবার (১০ জুন) সম্পাদক পরিষদ ও সংবাদপত্র মালিকদের সংগঠন নিউজপেপার ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (নোয়াব) আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। ‘অর্থনীতির চালচিত্র ও প্রস্তাবিত বাজেট ২০২৪–২৫’ শীর্ষক এ সেমিনার হয় রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে।

ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ বলেন, চ্যালেঞ্জিং সময়ে বাজেট দেয়া হয়েছে। অথচ এতে নতুনত্ব দেখছি না।আগের বাজেটের অংক শুধু এদিক–সেদিক করা হয়েছে। বলা হচ্ছে সংকোচনমূলক বাজেট, অথচ বাজেটের ঘাটতি তো সংকোচনমূলক মনে হয় না। আবার ঘাটতি মেটাতে ব্যাংক ঋণের ওপর নির্ভরতা বাড়ানো হয়েছে। সরকার যদি বেশি ঋণ নেয়, তাহলে বেসরকারি খাত কীভাবে ঋণ পাবে। আর ব্যক্তি খাত ঋণ না পেলে কর্মসংস্থান হবে কীভাবে। এ অবস্থায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হবে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প খাত।

সাবেক এ গভর্নর বলেন, বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) আকার ধরা হয়েছে ২ লাখ ৬৫ হাজার কোটি টাকা এ মুহূর্তে যা এক থেকে দেড় লাখ কোটি টাকার বেশি হওয়া উচিৎ নয়। নতুন করে ১ হাজার ২৮৫টি প্রকল্প নেয়া হয়েছে। এটা অর্ধেক করে দিলেই সরকারের ঋণ নির্ভরতা ও ঘাটতি কমবে। বাজেটের নীতি কৌশল ও দর্শনে বলিষ্ঠ কোনো পদক্ষেপ দেখা যাচ্ছে না, যা এ সময়ের জন্য দরকার ছিল। এমনিতেই ব্যাংকের মরমর অবস্থা। সুশাসনের চরম ঘাটতি।

সালেহউদ্দিন আহমেদ আরো বলেন, বাজেট করতে হবে পারফরম্যান্স নির্ভর কিছু সংস্থা দরকার হলে বন্ধ করে দিতে হবে, কিছু সংস্থার জনবল কমাতে হবে। শুধু বাজেটের অংক এদিক–সেদিক করে কোনো লাভ নেই। কঠিন পদক্ষেপ নিতে হবে। সূর্যের আলোর মতো স্বচ্ছ হতে হবে। তখন বাজেট যে আকারই হোক, সমস্যা হবে না।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক এ গভর্নর বলেন, মূল্যস্ফীতি যে পর্যায়ে গেছে এটা নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। এ ক্ষেত্রে কেবল আইএমএফের ফর্মুলা মেনে সুদহার বৃদ্ধি, ডলারের দর বৃদ্ধি ও সংকোচনমূলক মুদ্রানীতি দিয়ে হবে না। বাজার তদারকি বাড়াতে হবে। একই সঙ্গে সরবরাহ বাড়াতে হবে।তা না করে কেবল সংকোচন করে কাজ হবে না।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ও বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান পিপিআরসির নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. হোসেন জিল্লুর রহমান, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ও বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক ওয়াহিদউদ্দিন মাহমুদ, পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের (পিআরআই) নির্বাহী পরিচালক ড. আহসান এইচ মনসুর, সাবেক অর্থসচিব ও সাবেক কম্পট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেল (সিএজি) মোহাম্মদ মুসলিম চৌধুরী, সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ড. ফাহমিদা খাতুন এবং যুগান্তরের প্রকাশ সালমা ইসলাম এমপি। স্বাগত বক্তব্য দেন নোয়াবের সভাপতি এ. কে. আজাদ এমপি। সমাপনী বক্তব্য দেন সম্পাদক পরিষদের সভাপতি মাহফুজ আনাম। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সম্পাদক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ও বণিক বার্তার সম্পাদক দেওয়ান হানিফ মাহমুদ।

 

 

ইত্তেফাক এর একটি শিরোনাম “বাজেটের পর শেয়ার বাজার নিয়ে হতাশ বিনিয়োগকারীরা”

ঘড়ির কাঁটায় তখন বেলা ১২টা ছুঁইছুঁই। রাজধানীর মতিঝিলে গতকাল দেশের শীর্ষ একটি ব্রোকারেজ হাউজে তখন অনেকটা সুনসান নীরবতা। এক পাশে তিন-চার জন বিনিয়োগকারী বসে আছেন। তাদের মুখেও কথা নেই। অথচ এই হাউজেই কয়েক বছর আগেও বিনিয়োগকারীদের পদচারণায় মুখরিত থাকত। এই হাউজেই গতকাল কথা হলো ষাটোর্ধ একজন বিনিয়োগকারীর সঙ্গে। বাজার সম্পর্কে জিগ্যেস করতেই অনেকটা হতাশার সুরে তিনি জানালেন, ৩০ বছরের বেশি সময় ধরে তিনি শেয়ার বাজারে আছেন।

কিন্তু এমন খারাপ সময় তিনি দেখেননি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এই বিনিয়োগকারী বলেন, ‘আগে বাজার খারাপ হলেও কিছুদিনের মধ্যেই আবার ঘুরে দাঁড়াত। কিন্তু গত কয়েক বছর ধরে বাজার খারাপ যাচ্ছে’। তিনি বলেন, ‘দিনে দিনে বাজার খারাপ হতে হতে একদম খাদের কিনারে এসে ঠেকেছে। আমাদের ঈদ নেই, কোনো উত্সব নেই। ভেবেছিলাম, বাজেটে এমন কিছু থাকবে, যাতে বাজার ঘুরে দাঁড়াবে। কিন্তু বাজেট পেশের পর বাজার যেন আরও খারাপের দিকে যাচ্ছে।’

দেশের প্রধান শেয়ার বাজার ঢাকা স্টক একচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল সোমবারও মূল্যসূচকের বড়পতন হয়েছে। এদিন এই বাজারে লেনদেনকৃত মোট ৩৯১টি কোম্পানির মধ্যে দর বেড়েছে মাত্র ২৬টির। আর দর কমেছে ৩৪২টি কোম্পানির। অর্থাৎ, লেনদেনকৃত মোট কোম্পানির মধ্যে ৮৭ শতাংশেরই দর কমেছে। আর মাত্র ২৩টি কোম্পানির দর অপরিবর্তিত রয়েছে। এতে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৬৫.৭৬ পয়েন্ট কমে ৫ হাজার ১০৫.৮৮ পয়েন্টে নেমে এসেছে। আগের দিনও প্রধান সূচকটি ৬৫ দশমিক ৬৭ পয়েন্ট কমেছে। এতে আগামী ২০২৪-২৫ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট পেশের পর গত দুই কার্যদিবসে ডিএসইএক্স ১৩১ পয়েন্টের বেশি কমেছে। এতে ডিএসইর প্রধান সূচকটি ২০২১ সালের ৪ এপ্রিলের পর সর্বনিম্ন অবস্থানে চলে এসেছে। ২০২০ সালের ২২ ডিসেম্বর ডিএসইর প্রধান সূচক ৫ হাজার ৮৯ পয়েন্ট ছিল। এদিন এই বাজারে ৩১৮ কোটি ৭৮ লাখ টাকা লেনদেন হয়েছে। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয় ৩৫৭ কোটি ৯০ লাখ টাকা। সে হিসাবে লেনদেন কমেছে ৩৮ কোটি ১২ লাখ টাকা। অন্য বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল সার্বিক মূল্যসূচক সিএএসপিআই কমেছে ১৬২ পয়েন্ট।

বাজার বিশ্লেষকরা বলেছেন, দীর্ঘদিন ধরে দেশের শেয়ার বাজারে মন্দাবস্থা বিরাজ করছে। বিনিয়োগকারীরা আশা করছিলেন ২০২৪-২৫ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে পুঁজিবাজারে গতি ফেরাতে বিভিন্ন প্রণোদনা থাকবে। কিন্তু তা-তো নেই-ই উলটো মূলধনি মুনাফার ওপর কর আরোপ করা হয়েছে। প্রস্তাবিত বাজেটে শেয়ারবাজারে ব্যক্তি বিনিয়োগকারীরা ৫০ লাখ টাকার ওপরে ক্যাপিটাল গেইন করলে তার ওপর ১৫ শতাংশ হারে ট্যাক্স দিতে হবে। যেটা আগে ছিল না। এছাড়া, আগামী অর্থবছর থেকে করপোরেট কর আড়াই শতাংশ কমছে। শেয়ার বাজারে তালিকাভুক্ত নয়, এমন কোম্পানির জন্য এই হার ২৫ শতাংশ করা হয়েছে। তবে এ ক্ষেত্রে শর্ত হলো, একক লেনদেনে ৫ লাখ টাকা এবং বার্ষিক সর্বমোট ৩৬ লাখ টাকার বেশি সব খরচ ও বিনিয়োগ ব্যাংকের মাধ্যমে হতে হবে। বর্তমানে এই শ্রেণির প্রতিষ্ঠানকে সাড়ে ২৭ শতাংশ কর দিতে হয়। এছাড়া, শেয়ার বাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানির ক্ষেত্রে শর্ত সাপেক্ষে করপোরেট কর আগের মতোই ২০ শতাংশ অপরিবর্তিত রাখা হয়েছে। শর্ত পূরণ না করলে তালিকাভুক্ত কোম্পানির ক্ষেত্রে এ করহার হবে সাড়ে ২২ শতাংশ। এ হিসেবে তালিকাভুক্ত ও অতালিকাভুক্ত কোম্পানির মধ্যে কর হারের ব্যবধান আরো কমেছে। ফলে বিনিয়োগকারীরা বাজার নিয়ে অনেকটা হতাশ। যার কারণে বাজেট পেশের পর গত দুই কার্যদিবসে সূচকের এ বড়পতন।

সাবেক তত্বাবধায়ক সরকারের অর্থ উপদেষ্টা ও পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি)  সাবেক চেয়ারম্যান ড. এ বি মির্জা আজিজুল ইসলাম এ প্রসঙ্গে ইত্তেফাককে বলেছেন, আগামী বাজেটে শেয়ার বাজার নিয়ে কোনো দিকনির্দেশনা নেই। কিন্তু বর্তমান মন্দাবস্থায় শেয়ার বাজারে বিনিয়োগকারীদের আস্থা ফেরাতে সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা ঘোষণা করা উচিত ছিল।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দেশের শীর্ষ একটি ব্রোকারেজ হাউজের প্রধান নির্বাহী এ প্রসঙ্গে গতকাল ইত্তেফাককে বলেন, আজকে বাজারের এ মন্দাবস্থা এক দিনে হয়নি। ধীরে ধীরে বাজার এ অবস্থায় এসেছে। তিনি বলেন, শেয়ার বাজারের মূল সমস্যা কি? তা আসলে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) ও ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) বুঝতে পারছে না। তিনি বলেন, আমার হয়েছে জ্বর, আর আমাকে দেওয়া হয়েছে পেট খারাপের ওষুধ। তাহলে কি আমার রোগ ভালো হবে? তিনি আক্ষেপ করে বলেন, শেয়ার বাজারের মূল মার্কেট যেখানে চলে না, সেখানে বিএসইসি এসএমই মার্কেট নিয়ে ব্যস্ত। অথচ এসএমই মার্কেটে কয়টা ভালো কোম্পানি আনা হচ্ছে? এসব কিছু এখন রিভিউ করতে হবে।

 

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

kjhdf73kjhykjhuhf
© All rights reserved © 2024