বুধবার, ২৬ জুন ২০২৪, ০৩:৪৪ পূর্বাহ্ন

স্বল্প মেয়াদে গ্যাস রেশনিং, কমবে নিম্ম আয়ের মানুষের পানির দাম

  • Update Time : রবিবার, ১১ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪, ৫.৪৮ পিএম

সারাক্ষণ ডেস্ক

গ্যাস সরবরাহে স্বল্প মেয়াদে রেশনিং করে চলতে হবে বাংলাদেশকে’ বণিক বার্তার প্রধান শিরোনাম এটি। খবরে বলা হচ্ছে, দেশে বিদ্যুৎ, শিল্প, আবাসিকসহ অন্যান্য খাতে গ্যাসের দৈনিক চাহিদা প্রায় চার হাজার মিলিয়ন ঘনফুট। বিপরীতে গড়েসরবরাহ হচ্ছে তিন হাজার মিলিয়ন ঘনফুট।

 গ্যাসের স্থানীয় উত্তোলন হ্রাসের প্রেক্ষাপটে তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাসের (এলএনজি) আমদানি বাড়লেও তাতে চাহিদা পূরণহচ্ছে না। এতে বিভিন্ন খাতে গ্যাসের সরবরাহ হচ্ছে রেশনিংয়ের মাধ্যমে। পেট্রোবাংলাসহ দেশী-বিদেশী বিভিন্ন সংস্থার পূর্বাভাসঅনুযায়ী, দেশে গ্যাসের রেশনিং চালু রাখতে হবে আরো অন্তত দুই-তিন বছর।

চলতি ২০২৪ পঞ্জিকাবর্ষের প্রথম প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ) বৈশ্বিক গ্যাস বাজারের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে সম্প্রতি এক পূর্বাভাসপ্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ইন্টারন্যাশনাল এনার্জি এজেন্সি (আইইএ)। ফ্রান্সভিত্তিক আন্তঃসরকারি সংস্থাটির প্রতিবেদনেবাংলাদেশ সম্পর্কে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে ২০২৩ সালের প্রথম ১০ মাসে গ্যাসের চাহিদা কমেছে আগের বছরের একই সময়েরতুলনায় ১ শতাংশ।

যদিও এ সময় এলএনজি আমদানি বেড়েছে ২০ শতাংশের কাছাকাছি। তবে এ আমদানি স্থানীয় উত্তোলন হ্রাসজনিত ঘাটতিপূরণে যথেষ্ট নয়। অপর্যাপ্ত সরবরাহে বিভিন্ন খাতে গ্যাসের রেশনিং করতে হচ্ছে বাংলাদেশকে। এতে বিদ্যুৎ খাতকেও ক্রমাগতলোডশেডিং মোকাবেলা করতে হচ্ছে। খবরে বলা হয় , বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, অর্থ ও অবকাঠামোর ঘাটতির কারণেএলএনজির আমদানি বাড়িয়েও এ ঘাটতি পূরণ সম্ভব নয়।

মানবজমিন পত্রিকার শিরোনাম ‘পাকিস্তানে কোয়ালিশনের তোড়জোড়’। এই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে,

সরকার গঠন করতে পারেন বা না পারেন- ম্যাজিক দেখিয়েছেন কারারুদ্ধ সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তিনি আরওএকবার প্রমাণ দিয়েছেন নিজের জনপ্রিয়তা। তাই তো তার দল পাকিস্তান তেহরিকে ইনসাফ  (পিটিআই) সমর্থিত স্বতন্ত্রপ্রার্থীরা সব রাজনৈতিক দলকে পেছনে ফেলে শীর্ষ জনপ্রিয়তা প্রদর্শন করেছেন। বৃহস্পতিবার নির্বাচন হয়ে গেলেও শনিবারপর্যন্ত যেসব ফল পাওয়া গেছে তাতে পিটিআই সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থীরা জাতীয় পরিষদে ৯৫ আসনে বিজয়ী হয়েছেন।

দ্বিতীয় অবস্থানে আছে সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ (পিএমএলএন)। তারা পেয়েছে৭৪ আসন। অন্যদিকে ঐতিহ্যবাহী পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) পেয়েছে ৫৪টি আসন। অন্যান্য দল অল্প আসনে বিজয়ীহয়েছে। নির্বাচনে কোনো দলই একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি। পিটিআই অভিযোগ করেছে, ভোটে জালিয়াতি হয়েছে।

‘120km Dhaka canals lost to urban greed’ ডেইলি স্টার পত্রিকার প্রধান শিরোনাম এটি। খবরে বলা হচ্ছে, ঢাকা শহর গত৮০ বছরে দখল, অপরিকল্পিত নগরায়ন এবং কর্তৃপক্ষের রক্ষণাবেক্ষণের অভাবের কারণে ১২০ কিলোমিটার বা ৩০৭ হেক্টরখালের সম্মিলিত দৈর্ঘ্য হারিয়েছে, যা জলপথ এবং গুরুত্বপূর্ণ নিষ্কাশন হতে পারত।  এই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হারিয়ে যাওয়াখালের দৈর্ঘ্য রাজধানী ও ময়মনসিংহ শহরের দূরত্বের চেয়েও বেশি। রিভার অ্যান্ড ডেল্টা রিসার্চ সেন্টার (আরডিআরসি) এরএকটি সমীক্ষায় দেখা গেছে যে ৯৫টি খাল সম্পূর্ণ হারিয়ে গেছে বা তাদের দৈর্ঘ্য অর্ধেকেরও কম হয়ে গেছে। গবেষকরা ১৮৮০- ১৯৪০  সালের ভূমি জরিপ, যা আনুষ্ঠানিকভাবে ক্যাডাস্ট্রাল সার্ভে নামে পরিচিত, এবং ২০২২  সালের স্যাটেলাইট চিত্রগুলির সঙ্গে তুলনা করেছেন।

‘ছোট হচ্ছে কুতুবদিয়া, মানুষ ছুটছে শহরে ‘ প্রথম আলোর প্রধান শিরোনাম এটি। খবরে বলা হচ্ছে, সাগরদ্বীপ কুতুবদিয়ারআলী আকবর ডেইল ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ড খুদিয়ারটেক। সেটি এখন কেবল কাগজে-কলমেই আছে। বঙ্গোপসাগরে ভূমিবিলীনের পর এখানকার অন্তত ৩০ হাজার বাসিন্দার ঠাঁই হয়েছে শত কিলোমিটার দূরের কক্সবাজার শহরে। কেবল ১৫টিপরিবার থাকে খুদিয়ারটেকের পাশের তাবলের চরের বেড়িবাঁধের ঢালুতে।

খবরে বলা হচ্ছে, শুধু খুদিয়ারটেক নয়, কক্সবাজারের কুতুবদিয়া উপজেলার কৈয়ারবিল, উত্তর ধুরুং, দক্ষিণ ধুরুং, লেমশীখালী ও বড়ঘোপ থেকে বাস্তুচ্যুত হয়ে গত তিন দশকে আরও অন্তত ৩০ হাজার মানুষ দ্বীপ ছেড়েছেন। কুতুবদিয়ারবাস্তুহারা মানুষেরা কক্সবাজার শহরের সমুদ্র উপকূলীয় সরকারি জমির পাশাপাশি চকরিয়া, রামু, পেকুয়া, টেকনাফ, বান্দরবানের লামা, আলীকদম, চট্টগ্রামের বাঁশখালী, মিরসরাই, রাউজান, সাতকানিয়া ও লোহাগাড়া এলাকায় আশ্রয়নিয়েছেন।

উপজেলা প্রশাসনের তথ্যমতে, ১৮৭২ থেকে ১৯৯১ পর্যন্ত পাঁচটি বড় ঘূর্ণিঝড় ও জলোচ্ছ্বাসে কুতুবদিয়ার অনেকটা অংশবিলীন হয়েছে। ১৯৯১ সালের ঘূর্ণিঝড় ও জলোচ্ছ্বাসে উপজেলার খুদিয়ারটেক ও রাজাখালী নামের দুটি মৌজা মানচিত্র থেকেমুছে গেছে বলে প্রতিবেদনে জানা গেছে।

জলোচ্ছ্বাস থেকে রক্ষায় পাকিস্তান আমলে দ্বীপের চারদিকে ১০ থেকে ১২ ফুট উচ্চতার ৪০ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ দেওয়া হয়।কিন্তু বিভিন্ন দুর্যোগে সেই বাঁধ টিকছে না। দুই বছর আগেও ১৮ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ ভাঙা ছিল।

যুগান্তর পত্রিকার শিরোনাম ‘ পানির দাম ২৪-১৪৭% বাড়ানোর উদ্যোগ ‘।  এই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে,

চারটি ওয়াসার মধ্যে ঢাকায় পানির উৎপাদন খরচ সবচেয়ে বেশি । খবরে বলা হয়. আবারও পানির দাম বাড়াতে চায় ঢাকাওয়াসা। এবার গ্রাহকদের আর্থিক সামর্থ্য অনুযায়ী পানির দাম বাড়াতে চায় সংস্থাটি।

রাজধানীর পানি ও পয়ঃনিষ্কাশন সেবার দায়িত্বপ্রাপ্ত এই সংস্থা লাভজনক হওয়ার পরও শ্রেণিভেদে ২৪ থেকে ১৪৭ শতাংশপানির দাম বাড়ানোর উদ্যোগ নিয়েছে। এটা করা হলে ঢাকার প্রায় ৮৫ শতাংশ মানুষের পানির দাম বাড়বে। আর ১৫ শতাংশনিম্ন-আয়ের মানুষের পানির দাম কমতে পারে। সবমিলিয়ে ঢাকা ওয়াসার কয়েক গুণ আয় বাড়বে। সংস্থাটি এবার আরও লাভবাড়িয়ে শেয়ারবাজারে ঢুকতে চায়। খবর সংশ্লিষ্ট সূত্রের। ২১ জানুয়ারি ঢাকা ওয়াসা ভবনে এক আলোচনাসভায় স্থানীয়সরকার মন্ত্রীর উপস্থিতিতে শেয়ারবাজারে যাওয়ার অনুমোদন প্রত্যাশা করেন সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রকৌশলীতাকসিম এ খান।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

kjhdf73kjhykjhuhf
© All rights reserved © 2024