মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ০১:১৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
চাইনিজ প্রধানমন্ত্রী মিডিয়ার সঙ্গে কথা বলবেন না দলমুক্ত লোকালগর্ভমেন্ট ও সমাজকে বাচিয়ে রাখা সাপের বিষের থেকে ভয় পেয়েই বেশি মানুষ মারা যায় পাকিস্তানে সারাদেশে বৃষ্টি, রেস্টুরেন্টে গ্রেফতার, ব্যাংক একত্রিকরণে বৈঠক দশদিনে দশপায়ে ছুটবেন মোদি ওয়াশিংটন ডিসির প্রাইমারিতে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে হারিয়েছেন নিকি হ্যালি অনন্ত আম্বানির বিবাহের অনুষ্ঠানে রিহানা, মার্ক জুকারবার্গ এবং ইভাঙ্কা ট্রাম্প ভোরে এক পশলা বৃষ্টি, মেঘাচ্ছন্ন আকাশ, সারাদেশে কমেছে তাপমাত্রা সীমান্ত রক্ষায় বিজিবিকে স্মার্ট প্রযুক্তিতে সজ্জিত করা হচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী ৪ মার্চ ২০২৪ : টাকায় বিভিন্ন দেশের মুদ্রার বিনিময় হার

সীমান্তে সর্তকতা, মোহাম্মদপুরে কিশোর গ্যাং ও আত্মীয় পরিবেষ্টিত ভিসি

  • Update Time : মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪, ২.৫৪ পিএম

সারাক্ষণ ডেস্ক

‘Coast Guard, BGB on alert’ ডেইলি স্টার পত্রিকার প্রধান শিরোনাম এটি। খবরে বলা হচ্ছে, মিয়ানমারের নাগরিকদের নতুন করে আগমনের আশঙ্কার মধ্যে, বাংলাদেশ সীমান্ত এবং কোস্টগার্ডরা নাফ নদীসহ মিয়ানমার সীমান্তে সতর্কতা বাড়িয়েছে।  বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড এবং সীমান্ত বাহিনীর সদস্যদের গত কয়েকদিন ধরে সীমান্ত এলাকায় টহল দিতে দেখা গেছে, কারণ স্থানীয়রা বলছেন যে মিয়ানমারের পরিস্থিতি এখনও উত্তেজনাপূর্ণ এবং রোহিঙ্গাসহ আরও মিয়ানমারের নাগরিক আশ্রয়ের জন্য যে কোনো সময় নাফ অতিক্রম করার চেষ্টা করতে পারে।

খবরে বলা হচ্ছে, গত সপ্তাহে, উভয় বাহিনী মিয়ানমারের নাগরিকদের সাথে বেশ কয়েকটি আগত নৌকা আটকে দেয় এবংমিয়ানমারের সেনাবাহিনী এবং আরাকান আর্মি (AA) এর মধ্যে একটি বিদ্রোহী গোষ্ঠী যারা রাখাইনে একটি পৃথক রাজ্য প্রতিষ্ঠা করতে চায়, এর মধ্যে কয়েক সপ্তাহ ধরে চলা ভয়াবহ লড়াইয়ের মধ্যে তাদের মিয়ানমারের দিকে পুনঃনির্দেশিত করে। গত মঙ্গলবার থেকে, কক্সবাজারের টেকনাফ ফেরি টার্মিনালের কাছে নাফ দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশের চেষ্টা করায় কমপক্ষে ১০০রোহিঙ্গাকে পিছনে ঠেলে দেওয়া হয়েছে, কোস্টগার্ড সূত্র জানিয়েছে। কোস্টগার্ডের টেকনাফ স্টেশনের প্রধান লেফটেন্যান্ট কমান্ডারলুৎফুর লাহিল মজিদ জানান, বিরাজমান পরিস্থিতিতে তারা সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থানে রয়েছেন।যদিও সাম্প্রতিক সপ্তাহ গুলিতে লড়াই শুরু হওয়ার পর থেকে কোনও বড় আকারের রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের খবর পাওয়া যায়নি, তবে মিয়ানমার সেনাবাহিনীএবং সীমান্ত পুলিশের অন্তত ৩৩০ সদস্য সংঘর্ষ থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।

 

‘কিশোর গ্যাং’ প্রশ্রয় দেন ঢাকার ২১ কাউন্সিলর ‘  প্রথম আলোর প্রধান শিরোনাম এটি। খবরে বলা হচ্ছে,নাম কিশোর গ্যাং হলেও এসব বাহিনীর সদস্যরা বেশির ভাগই ১৮ বছরের বেশি বয়সী। রাজধানীতে অপরাধে জড়িত তাঁরা। রাজধানীর মোহাম্মদপুরের ঢাকা উদ্যান এলাকায় বছর সাতেক আগে ১১ জন ব্যক্তি মিলে ৪ শতাংশ জমি কেনেন। তিন মাস আগে সেইজমিতে ভবন নির্মাণ করতে গেলে ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন স্থানীয় ‘গাংচিল বাহিনী’র সদস্যরা। জমির মালিকেরা পাঁচলাখ টাকা চাঁদা দিয়ে ভবনের নির্মাণকাজ শুরু করতে পেরেছেন। মালিকদের একজন নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, চাঁদারটাকা দিতে একটু দেরি হয়েছিল। সে কারণে নির্মাণ শ্রমিকদের মারধর করা হয়েছিল। গাংচিল বাহিনীকে চাঁদা না দিয়ে ওইএলাকায় কোনো ভবন নির্মাণ করা যায় না। এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গাংচিল বাহিনীর নেতা মো. মোশারফহোসেন ওরফে লম্বু মোশারফ পুলিশের তালিকাভুক্ত অপরাধী। তাঁর বিরুদ্ধে অন্তত ১৫টি মামলা রয়েছে। তাঁকে ও তাঁর বাহিনীকে প্রশ্রয় দেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আসিফ আহমেদ।

খবরে বলা হয়, প্রথম আলোর অনুসন্ধান ও পুলিশের নিজস্ব প্রতিবেদন সূত্রে ঢাকায় গাংচিল বাহিনীর মতো অন্তত ৮০টিবাহিনীর খোঁজ পাওয়া গেছে, যেগুলোর বেশির ভাগ ‘কিশোর গ্যাং’ নামে পরিচিত। নামে কিশোর গ্যাং হলেও এসব বাহিনীরবেশির ভাগ সদস্যের বয়স ১৮ বছরের বেশি। তাঁরা ছিনতাই, চাঁদাবাজি, মাদক ব্যবসা, জমি দখলে সহায়তা, ইন্টারনেটসংযোগ, কেবল টিভি (ডিশ) ব্যবসা ও ময়লা–বাণিজ্য নিয়ন্ত্রণ, উত্ত্যক্ত করা, যৌন হয়রানি করা, হামলা, মারধরসহ নানা অপরাধে জড়িত।

 

মানবজমিন পত্রিকার শিরোনাম ‘ পাকিস্তানে প্রধানমন্ত্রিত্ব ভাগাভাগি করে নতুন সরকার’ । খবরে বলা হয়, পাকিস্তানে ক্ষমতাভাগাভাগি করে আবারো সরকার গঠন করার পথে রয়েছে পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন) ও পাকিস্তানপিপলস পার্টি (পিপিপি)। তবে এই জোট সরকারের প্রধানমন্ত্রী কে হবেন তা নিয়ে দল দুটি এখনো কোনো সমাধানে পৌঁছাতে পারেনি। পিপিপি শর্ত দিয়েছে, দলটির প্রধান বিলাওয়াল ভুট্টোকে যদি প্রধানমন্ত্রী করা হয়, তবেই তারা পিএমএল-এনকে সমর্থন দেবে। এদিকে পিএমএল-এন প্রধান নওয়াজ শরীফও প্রধানমন্ত্রিত্ব ছাড়তে নারাজ।

সর্বশেষ জানা গেছে, নওয়াজ ওবিলাওয়াল এখন প্রধানমন্ত্রিত্ব ভাগাভাগির সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এ খবর দিয়েছে জিও টিভি। খবরে জানানো হয়, আগামী পাঁচ বছরের জন্য সরকার গঠনে সম্মত হয়েছেন পিএমএল-এন ও পিপিপি নেতারা। আর এই পাঁচবছরের মধ্যে ‘আড়াই বছর করে’ পিএমএল-এন এবং পিপিপি’র প্রার্থী প্রধানমন্ত্রী থাকবেন। রোববার রাতেই এ নিয়ে দুই দলেরমধ্যে আলোচনা সম্পন্ন হয়েছে বলে জানিয়েছে গণমাধ্যমটি। ওই আলোচনার পর এক যৌথ বিবৃতিতে জানানো হয়, ‘পাকিস্তানকে বাঁচাতে’ দুই দলই সম্মত হয়েছে। তবে প্রধানমন্ত্রিত্ব নিয়ে কোনো সুরাহা হলো কিনা সেটি স্পষ্ট করা হয়নি। সূত্রেরবরাত দিয়ে জিও টিভি জানিয়েছে, পিএমএল-এন দলই প্রথম সরকার গঠনের জন্য পিপিপি’র কাছে আনুষ্ঠানিক প্রস্তাবপাঠায়। খবরে বলা হয়, রোববারের ওই বৈঠক হয় লাহোরের বিলাওয়াল হাউসে। এতে পিপিপি’র পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন আসিফ আলি জারদারি ও বিলাওয়াল ভুট্টো। অপরদিকে পিএমএল-এনের তরফে উপস্থিত ছিলেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরীফ, আজম নাজির তারার, আয়াজ সাদিক, আহসান ইকবাল, রানা তানভির, খাজা সাদ রফিক, মালিক আহমদ খান, মরিয়ম আওরঙ্গজেব ও শেজা ফাতিমা। প্রধানমন্ত্রীর পদ ছাড়াও পিপিপি এবং পিএমএল-এন অন্যান্য বিষয় নিয়েও বিশদ আলোচনা করেছে বলে জানা গেছে।

 

‘বালাইনাশক নিয়ন্ত্রণে নেই নিয়মের বালাই’ সমকাল পত্রিকার  প্রধান শিরোনাম এটি। খবরে বলা হচ্ছে,কার্বোফুরান। দানাদার এই কীটনাশক এতটাই ভয়ংকর, জমিতে একবার ব্যবহার করলে ৩০ দিন পর্যন্ত ফসলে লেপ্টে থাকে এর বিষাক্ততা।এটি প্রতিরোধক ও প্রতিষেধক– দুই কাজই করে। এই ‘শক্তিধর’ বালাইনাশক আগে ব্যবহার করলে পোকা আসে না ফসলেরধারেকাছে, আর কীটপতঙ্গ হানা দেওয়ার পর ব্যবহারে কীট মুহূর্তেই মারা পড়ে। কার্বোফুরানের বিষাক্ততা মানবস্বাস্থ্য ওআবাদ যোগ্য জমির উর্বরতার জন্য ক্ষতিকর উল্লেখ করে ২০১৬ সালে তা নিষিদ্ধের আহ্বান জানায় জাতিসংঘ। সেই ডাকে সাড়াদিয়ে গত ৩০ জুন কার্বোফুরান নিষিদ্ধ করে সরকার। পরে আমদানিকারক ও ব্যবসায়ীদের আবদারে নিষেধাজ্ঞার সময়সীমাগেল ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়ানো হয়। তবে কার্যকর নজরদারি না থাকায় যেন ফুরাচ্ছে না কার্বোফুরান। এখনও সারাদেশে প্রকাশ্যেই হচ্ছে এ কীটনাশক বিষের দেদার কেনাবেচা।

খবরে বলা হচ্ছে,শুধু কার্বোফুরান নয়; দেশে ভূরি ভূরি মানহীন নিষিদ্ধ বালাইনাশকের (পেস্টিসাইড) কারণে আর্থিক ক্ষতিরমুখে পড়ছে কৃষককুল। আবার ডিলারনির্ভর ব্যবসায়ীরা ‘লাভের গুড়’ খাওয়ার আশায় নানা কসরত করে বিদেশ থেকেনিম্নমানের বালাইনাশক উড়িয়ে আনছেন দেশে। অন্যদিকে, কাঁচামাল আমদানির পর দেশে প্রক্রিয়াজাত করে বিপণন করাকীটনাশকের মান অনেক সময় ঠিক থাকছে না। এ ছাড়া একটি অসাধু সিন্ডিকেট নকল কীটনাশক তৈরি করে তা সারাদেশেছড়িয়ে দিচ্ছে। বৈধ কোম্পানির কীটনাশকের দামও বেড়েছে ২০ শতাংশের বেশি। ফলে উৎপাদন খরচের প্রায় অর্ধেকই খরচা হয়ে যাচ্ছে কীটনাশকের পেছনে। অথচ বালাইনাশকের নিয়ন্ত্রণহীন ব্যবসা থামাতে নেই ফলপ্রসূ উদ্যোগ।

খবরে আরো বলা হচ্ছে,দোকান পরিদর্শন করে সংশ্লিষ্ট কৃষি কর্মকর্তাকে মাসে অন্তত দুটি নমুনা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উদ্ভিদ সংরক্ষণ উইংয়ে (প্লান্ট প্রটেকশন) পাঠানোর কথা বলা হলেও সে নিয়মের পথে হাঁটছেন না অনেকে। আবার নমুনা পাঠালেও পরীক্ষাগারের প্রতিবেদন পেতে দু-তিন মাস সময় লেগে যাওয়ায় যথাসময়ে ব্যবস্থা নেওয়া যায় না বলে অভিযোগরয়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ফসল আবাদের পরিধি ও ধরন বদলে গেছে। বেড়েছে ফসলের জন্য ক্ষতিকর রোগজীবাণু ও কীটপতঙ্গ। এসব দমনে কৃষক বালাইনাশকের ব্যবহারও বাড়িয়েছেন। আর এ সুযোগে কোম্পানিগুলো কাটছে কৃষকের পকেট।কৃষিতে কীটনাশক ব্যবসা নিয়ন্ত্রণে শক্ত নজরদারি দরকার বলে মনে করেন তারা।

 

 ‘উপাচার্যদের ‘আত্মীয় কর্মসংস্থান কেন্দ্র’ হয়ে উঠছে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলো? ‘ বণিক বার্তার প্রধান শিরোনাম এটি। খবরে বলা হচ্ছে, শিক্ষক-কর্মকর্তাসহ মোট ৫৮টি পদের নিয়োগ প্রক্রিয়া গত ২ ডিসেম্বর সম্পন্ন করেছে পটুয়াখালী বিজ্ঞান ওপ্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। এসব পদে নিয়োগ প্রাপ্তদের একজন উপাচার্য অধ্যাপক স্বদেশ চন্দ্র সামন্তের ছেলে শাওন চন্দ্র সামন্ত তনু।তবে এ নিয়োগে যোগ্যতা নিরূপণের প্রক্রিয়া নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বিশ্ববিদ্যালয়টির শিক্ষক সমিতি। এ বিষয়ে সংগঠনটির পক্ষথেকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে অভিযোগও করা হয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে বর্তমানে বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি)।

খবরে বলা হচ্ছে, এ ঘটনার পুনরাবৃত্তি দেখা গেছে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়েও। অভিযোগ রয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয়টিতেএখন পর্যন্ত যারা উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন তাদের সবাই মেয়াদকালে কোনো না কোনো আত্মীয়কে নিয়োগ দিয়েছেন।সর্বশেষ গত ১৮ ডিসেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়টিতে সেকশন অফিসার হিসেবে চাকরি পেয়েছেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. শহীদুর রশীদ ভুঁইয়ার ছোট ছেলে হামিম আল রশীদ।

খবরে বলা হচ্ছে, গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেমুরবিপ্রবি) ২০২২ সালেনিয়োগ বিজ্ঞপ্তির শর্ত পূরণ না করে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে নিয়োগ দেয়া হয় বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীনউপাচার্য অধ্যাপক ড. ছাদেকুল আরেফিনের মেয়ে অহনা আরেফিনকে। এর কিছুদিন পরই বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়েরএনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স অ্যান্ড ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট বিভাগে নিয়োগ পান বশেমুরবিপ্রবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. একিউএমমাহবুবের মেয়ে ফারজানা মাহবুব। এছাড়া বশেমুরবিপ্রবির সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. খোন্দকার নাসিরউদ্দিন তার মেয়াদকালে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে নিয়োগের শর্ত শিথিল করে তার ভাতিজা পারভেজ হোসেনকে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দিয়েছিলেন।

 

‘Qatar frees eight former Indian Navy men, PM will go to Doha tomorrow’ ভারতীয় গণমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসেরপ্রধান শিরোনাম এটি। খবরে বলা হচ্ছে, স্বস্তিপ্রাপ্ত পরিবারগুলি সরকারের প্রচেষ্টা এবং প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত হস্তক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছে – মোদি ১লা ডিসেম্বর দুবাইতে COP28 শীর্ষ সম্মেলনের সাইডলাইনে কাতার আমিরের সাথে দেখা করেছিলেন – আটজনের মুক্তি নিশ্চিত করতে। কাতার আট প্রাক্তন ভারতীয় নৌসেনা সদস্যকে মুক্তি দিয়েছে, প্রধানমন্ত্রীআগামীকাল দোহা যাবেন।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

kjhdf73kjhykjhuhf
© All rights reserved © 2024