সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:১৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
জিকো এবং জেনি নতুন ট্র্যাক ‘স্পট’-এর জন্য উত্তেজনাপূর্ণ টিজার উন্মোচন করেছে কাতারের আমিরকে স্বাগত জানালেন রাষ্ট্রপতি গরমে শুধু শিশুদের নয়, বয়স্কদেরও ডায়েরিয়া বেড়েছে কিরগিজস্তান বাংলাদেশ থেকে দক্ষ জনশক্তি নিতে চায় : সালমান এফ রহমান সন্তানের অভিভাবকত্ব নির্ধারণের নির্দেশিকা এবং নীতিমালা প্রণয়নে হাইকোর্টের রুল জারি শুভমান গিল অদূর ভবিষ্যতে ভারতীয় দলকে নেতৃত্ব দিবে: রবিন উথাপ্পা মানবজনম জাতীয়তা আইনজীবী ফোরামের কোনো গঠনতন্ত্র নেই : ব্যারিষ্টার খোকন  বাইডেন কি আফ্রিকান-আমেরিকান ভোটার ধরে রাখতে পারবেন? কে-পপ ইলিটের প্রথম গানেই ১০০ মিলিয়ন স্পটিফাই স্ট্রিম

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার নিরাপত্তায় যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের মধ্যে চুক্তি

  • Update Time : মঙ্গলবার, ২ এপ্রিল, ২০২৪, ৭.৩৮ পিএম

সারাক্ষণ ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্র এবং যুক্তরাজ্য উন্নত কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (AI) বিষয়ে একটি চুক্তি করেছে।  কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার পরীক্ষায় একসাথে কাজ করার জন্য এটি একটি যুগান্তকারী চুক্তি।

চুক্তিতে বলা হয়েছে,  দু্ই দেশ এআই সরঞ্জাম এবং তাদের ভিত্তি করে সিস্টেমগুলোর সুরক্ষার মূল্যায়নের জন্য “শক্তিশালী” পদ্ধতিগুলি বিকাশে একসাথে কাজ করবে। এটি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা  বিষয়ে প্রথম দ্বিপাক্ষিক চুক্তি।

যুক্তরাজ্যের প্রযুক্তি মন্ত্রী মিশেল ডোনেলান বলেছেন, এটি “আমাদের প্রজন্মের জন্য প্রযুক্তি চ্যালেঞ্জ”। তিনি বলেন, ‘আমরা সবসময়ই স্পষ্ট করে বলেছি যে, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার নিরাপদ উন্নয়ন নিশ্চিত করা একটি যৌথ বৈশ্বিক সমস্যা। চুক্তিটি ২০২৩ সালের নভেম্বরে ব্লেচলি পার্কে অনুষ্ঠিত এআই সুরক্ষা শীর্ষ সম্মেলনে করা প্রতিশ্রুতির উপর ভিত্তি করে তৈরি হয়েছে।

ওপেনএআই-এর স্যাম অল্টম্যান, গুগল ডিপমাইন্ডের ডেমিস হাসাবিস এবং প্রযুক্তি বিলিয়নিয়ার ইলন মাস্ক সহ এআই কর্তাদের উপস্থিতি ছিলেন। এই অনুষ্ঠানে যুক্তরাজ্য এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র উভয়ই এআই সেফটি ইনস্টিটিউট তৈরি করেছে যার লক্ষ্য ওপেন এবং ক্লোজ-সোর্স এআই সিস্টেমগুলোর মূল্যায়ন করা। বড় এআই চ্যাটবটগুলোর (চ্যাটজিপিটি, জেমিনি, বিং বট) মধ্যে এখনো প্রতিযোগিতা রয়েছে।

এখন পর্যন্ত কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার পিছনে প্রায় একচেটিয়াভাবে মার্কিন-ভিত্তিক সংস্থাগুলোর নিয়ন্ত্রণ রয়েছে। ইউরোপীয় ইউনিয়নের এআই আইন আইন হওয়ার পথে রয়েছে এবং এটি কার্যকর হওয়ার পরে নির্দিষ্ট এআই সিস্টেমের বিকাশকারীরা তাদের ঝুঁকি সম্পর্কে স্পষ্ট হবে । এছাড়া ডেটা ব্যবহার বিষয়ে তথ্য ভাগ করতে পারবে।

চুক্তির পরে ওপেনএআই বলেছে,  নির্বাচনের আগে “গুরুতর ঝুঁকি” হিসেবে ভয়েস ক্লোনিং প্রযুক্তি প্রকাশ করবে না।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

kjhdf73kjhykjhuhf
© All rights reserved © 2024